উহানের বাতাসে ফের করোনার উপস্থিতি

করোনাভাইরাস বাতাসের মাধ্যমে ছড়াতে পারে, এমন তথ্যর প্রমাণ পেয়েছে চীন। এরই মধ্যে উহান শহরের দুটি হাসপাতালের বাতাসে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পেয়েছেন দেশটির বিজ্ঞানীরা। তাদের দাবি, হাসপাতালগুলো থেকে নেয়া বাতাসের নমুনার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণার মধ্যে নতুন করোনাভাইরাসের জিনগত বৈশিষ্ট্যের (আরএনএ) উপস্থিতি মিলেছে। ওই কণাগুলোর বেশিরভাগেরই ব্যাস এক ইঞ্চির দশ হাজার ভাগের এক ভাগেরও কম।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) নেচার সাময়িকীতে চীনা বিজ্ঞানীদের এ গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে।

প্রকাশিত নিবন্ধে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, তারা যে নমুনা সংগ্রহ করেছেন সেখানে থাকা ভাইরাস সংক্রামক কিনা তা এখনো জানা যায়নি, তবে ক্ষুদ্র এ তরলকণাগুলো সহজেই ব্যক্তির নিঃশ্বাসের সঙ্গে ও কথা বলার সময় নির্গত হতে পারে। কণাগুলো ভাসতে পারে ও শ্বাসের মাধ্যমে অন্য জনের শরীরে ঢুকেও পড়তে পারে।

নেচারের ওই গবেষণা নিবন্ধের সঙ্গে যুক্ত না থাকলেও ভার্জিনিয়া পলিটেকনিক অ্যান্ড স্টেট ইউনিভার্সিটির সিভিল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অধ্যাপক লিনসে মার বলেছেন, ‘তরলকণাগুলো অন্তত দুই ঘণ্টা বাতাসে ভেসে থাকতে পারে। এ প্রতিবেদনে জোরালো ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে যে, ভাইরাসটির বায়ুর মাধ্যমে ছড়ানোর সম্ভাবনা আছে।’

নতুন করোনাভাইরাসটি যে এরোসল নামে পরিচিত অতি ক্ষুদ্র তরলকণার মাধ্যমে ছড়াতে পারে, এমন প্রমাণ বাড়ছে বলে জানিয়েছেন মার ও অন্য আরও অনেক বিজ্ঞানী।

তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এখনও পর্যন্ত বাতাসের মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়ানোর সম্ভাবনাকে আমলে নেয়নি। তারা বলছে, বাতাসে বেশিক্ষণ ভাসতে পারে না এমন বড় বড় তরলকণার মাধ্যমেই ভাইরাসটি ছড়াতে পারে অথবা সংক্রমিত কোনো কিছু ছোঁয়ার মাধ্যমে ছড়াতে পারে।
এদিকে, চীনের মেডিকেল সংস্থা ইনস্টিটিউট অব প্যাথোজেন বায়োলজির প্রধান জিন কি বলছেন, মানুষের শরীরে দীর্ঘদিন থাকতে পারে করোনাভাইরাস যা খুব আতঙ্কের।। কারণ করোনাকে নির্মুল করা এখনো সম্ভব হয়নি। সেই চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.