ঈদের জামাতও ঘরে পড়ার আহ্বান সৌদির গ্র্যান্ড মুফতির

করোনার প্রভাবে প্রতিদিন, প্রতিমুহূর্তে বদলে যাচ্ছে চিরচেনা পৃথিবীর চেহারা। বদলে যাচ্ছে পৃথিবীর পুরনো নিয়ম-কানুন। দেশে-দেশে মানুষের জীবন-যাপনের প্রণালীও বদলে যাচ্ছে।এর প্রভাব পড়েছে সৌদি আরবেও। দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা গ্র্যান্ড মুফতি বলেছেন, যদি করোনাভাইরাস মহামারি অব্যাহত থাকে তাহলে তারাবি ও ঈদের নামাজ ঘর থেকে পড়তে হবে। সৌদি আরবে একটি সংবাদপত্র ওকাজের বরাত দিয়ে এ খবর ছেপেছে আল জাজিরা।

শুক্রবার (১৮ এপ্রিল) ওকাজের খবরে বলা হয়, তারাবি নামাজ নিয়ে গ্র্যান্ড মুফতি শেখ আব্দুলআজিজ আল-শেখকে একটি প্রশ্ন করা হয়েছিল। এর জবাবে তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থার কারণে রমজানে তারাবি নামাজ মসজিদে পড়া না গেলে তা ঘর থেকে আদায় করা যাবে। ঈদের নামাজের ক্ষেত্রেও এটি প্রযোজ্য হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আগামী সপ্তাহ থেকে পবিত্র রমজান মাসের রোজা শুরু হবে। করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে মার্চ মাসের মাঝামাঝি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ও জুমা’র নামাজ মসজিদে নিষিদ্ধ করে সৌদি আরব।

এদিকে, বৃহস্পতিবার মসজিদে নববী’র কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তারা রমজান মাসে প্রতিদিন যে ইফতারের আয়োজন করতে তা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।
সৌদি আরবে এখন পর্যন্ত ছয় হাজার ৩৮০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। উচ্চ সংক্রামক এই রোগে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৮৩ জনের।
অন্যদিকে নতুন করে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষিতে রোববার অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ বৃদ্ধি করেছে সৌদি সরকার। এর ফলে রাজধানী রিয়াদ ও অন্যান্য বড় শহরে ২৪ ঘন্টায় কারফিউ থাকবে। তবে প্রয়োজনী জিনিসপত্র কিনতে ঘর থেকে বের হতে পারবে মানুষজন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!