ইউরোপে যাওয়ার পথে বাংলাদেশিসহ ৩৫ জনকে নিয়ে ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি

লিবিয়া থেকে ইউরোপে যাওয়ার সময় ভূমধ্যসাগরে ৩৫ জনকে নিয়ে একটি নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে। ওই নৌকায় বাংলাদেশের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি দেশের অভিবাসীরা ছিলেন বলে আজ শুক্রবার জানিয়েছে জাতিসংঘ।

বার্তা সংস্থা এপির বরাত দিয়ে ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা করে লিবিয়ার জেলেরা গতকাল বৃহস্পতিবার নৌকাটিকে দেখতে পান। তারা ২২ জনকে উদ্ধার করতে পারলেও ১৩ জনের কোনো খোঁজ পাননি। যারা উদ্ধার হয়েছেন, তাদের মধ্যে বাংলাদেশ, মিশর, সিরিয়া, সোমালিয়া এবং ঘানার নাগরিক রয়েছেন। নিখোঁজ ১৩ জনের বিষয়ে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বিস্তারিত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

ওয়াশিংটন পোস্টের তথ্য অনুযায়ী, তিনটি লাশ পানিতে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া গেছে। এর মধ্যে এক পুরুষ এবং এক নারীর বাড়ি সিরিয়ায়। লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলির পূর্বাঞ্চলের এলাকা জেলাইটেন থেকে গত বুধবার সন্ধ্যায় নৌকাটি যাত্রা শুরু করে। দেশটির কোস্ট গার্ড জানিয়েছে, তারা উদ্ধার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

লিবিয়ার নৌ-কর্মকর্তা মাসউদ আবদাল সামাদ বলেন, ‘শরৎ খুব কঠিন মৌসুম। বাতাস শুরু হলে নদীতে প্রাণঘাতী অবস্থার সৃষ্টি হয়।’

লিবিয়ার সাবেক শাসক গাদ্দাফির পতনের পর এই দেশ দিয়ে অনেক অভিবাসী ইউরোপে যাওয়া শুরু করেন। পাচারকারীরা প্রায়ই ঝুঁকিপূর্ণ নৌকায় মানুষদের সাগরে ভাসায়। জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালের পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ২০ হাজার মানুষ মারা গেছে এই অঞ্চলে! শুক্রবারের দুর্ঘটনায় যারা বেঁচে গেছেন তাদের নেওয়া হয়েছে ত্রিপোলি বন্দরের আশ্রয়কেন্দ্রে ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!