December 4, 2020

মাই পেটারসন. লাইফ

ভয়েস অফ দ্যা কমিউনিটি

ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হলেন মুশফিক

বাংলাদেশের জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও তারকা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ইউনিসেফের নতুন শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন। তিনি শিশু অধিকার বিষয়ে প্রচারণার জন্য ইউনিসেফের সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন। রোববার(৪ অক্টোবর) নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এক ভিডিও বার্তায় মুশফিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ব্যাপারে মুশফিকুর রহিম বলেন, ‘আপনারা আমাকে অনেক সফল পার্টনারশিপের সঙ্গে যুক্ত হতে দেখেছেন। আমি অধিনায়ক হিসেবে দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছি এবং দেশ ও জাতির জন্য গৌরব অর্জন করার চেষ্টা করেছি। এবার বাংলাদেশে শিশু অধিকারে উন্নতি আনতে সাকিব ও মিরাজের সঙ্গে আমিও লোকজনকে উৎসাহিত করব।’

ইউনিসেফ বাংলাদেশের ডেপুটি রিপ্রেজেন্টেটিভ ভিরা মেনডোনকা বলেন, ‘মুশফিককে জাতীয় শুভেচ্ছাদূত হিসেবে স্বাগত জানাতে পেরে আমরা গর্বিত। মুশফিকের সম্মান এবং প্রতিভা ইউনিসেফকে সহায়তা করবে। সারা দেশের মানুষের কাছে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পৌঁছে দিতেই মুশফিকের কাছে যাওয়া।’

ইউনিসেফ বাংলাদেশের ডেপুটি রিপ্রেজেন্টেটিভকে ধন্যবাদ জানিয়ে মুশফিক বলেন, ‘ধন্যবাদ ভিরা, ইউনিসেফের সঙ্গে শিশুদের নিরাপদ, সুস্থ ও সুখী শৈশবের জন্য কাজ করতে আমি খুবই আগ্রহী। এটা আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমি দেশের শিশু অধিকারের মুখপাত্র হতে পেরে আনন্দিত।’

মুশফিক বাংলাদেশ দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। অভিষেকের পর থেকে জাতীয় দলের একজন নিয়মিত সদস্য তিনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রায় ১২,০০০ রান এবং ১৪টি সেঞ্চুরি করেছেন। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের শীর্ষ তিন রান সংগ্রাহকের তালিকায় রয়েছেন এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান।

এর আগে ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করেছেন সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমন ও মোহাম্মাদ আশরাফুল।

ইউনিসেফের দূত হিসেবে মুশফিকের কাজ হবে শিশুদের অধিকার এবং তারুণ্যকে প্রভাবিত করে সেসব বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে সহায়তা করা। শিক্ষার অধিকার, দারিদ্র্য ও বৈষম্যের প্রভাব এবং সহিংসতা, নির্যাতন এবং শোষণের বিরুদ্ধে সুরক্ষার জন্য শিশুদের প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে কাজ করবেন এ তারকা ব্যাটসম্যান।

error: Content is protected !!