আমেরিকায় করোনার সংক্রমণ বাড়ছে

আমেরিকায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আবার বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশটিতে কয়েক সপ্তাহে  প্রায় ২০ হাজার মানুষের সংক্রমিত হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও  গত সপ্তান্তে এ সংখ্যা দিনে ৩০ হাজারে বেড়ে গিয়েছে বলে জানা যায়। 

দেশটির দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমের এলাকাগুলোয় করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির হার লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ইউরোপের বিভিন্ন দেশ করোনার সংক্রমণ কমিয়ে আনতে আমেরিকার চেয়ে অনেক ভালো পদক্ষেপ নিয়েছে। ইতালি ও স্পেনের চেয়ে আমেরিকা করোনা পরিস্থিতি ব্যবস্থাপনায় পিছিয়ে আছে। 

ইউরোপের দেশগুলোয় এখনো সংক্রমণ হলেও তারা সংক্রমিতের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে। অল্পসংখ্যক মানুষ এখন ওই সব দেশে নতুন করে সংক্রমিত হচ্ছে। কিন্তু আমেরিকায় ঘটছে তার উল্টো। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের করোনায় আক্রান্ত দেশগুলোয় এখন দিনে গড়ে তিন হাজারেরও কম মানুষ সংক্রমিত হচ্ছে। আর আমেরিকায় সংক্রমিত হচ্ছে তার ১০ গুণ বেশি। অথচ ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের দেশগুলোয় আমেরিকার চেয়ে ১০০ মিলিয়ন বেশি মানুষের বসবাস।

আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স গত সপ্তাহে ওয়ালস্ট্রিট জার্নালকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, আমেরিকায় করোনাভাইরাস স্তিমিত হয়ে আসছে। সংক্রমিতের সংখ্যা দিনে ৩০ হাজার ছিল। মে মাসে দিনে তা ২৫ হাজারে নেমে এসেছে। আর গত সপ্তাহে দিনে ২০ হাজার সংক্রমিতের কথা তিনি উল্লেখ করেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত সপ্তাহে ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ভ্যাকসিন ছাড়াই করোনাভাইরাস স্তিমিত হয়ে যাবে। ২০ জুন নির্বাচনী প্রচারে দেওয়া বক্তব্যে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছিলেন, তিনি করোনার টেস্টিং কমিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এ নিয়ে পরদিন থেকে সমালোচনা শুরু হয় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের। পরে হোয়াইট হাউস থেকে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কৌতুক করেই এ কথা বলেছিলেন।

এদিকে করোনাভাইরাসে নাজুক হওয়া নিউইয়র্কের অবস্থা ক্রমাগত উন্নতির দিকে। তিন মাসের লকডাউনের পর ধীরে ধীরে জীবনযাত্রা স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে। আমেরিকার দক্ষিণ ও দক্ষিণ–পশ্চিমের রাজ্যগুলোয় সংক্রমণ বাড়ছে। অ্যারিজোনা, টেক্সাস, ফ্লোরিডা, সাউথ ও নর্থ ক্যারোলাইনার মতো রাজ্যে সংক্রমণ বাড়ছে। এটাকে দ্বিতীয় দফা সংক্রমণ হিসেবেও দেখতে শুরু করছেন কেউ কেউ। উপযুক্ত সামাজিক ব্যবধান না মানার কারণে অনেক এলাকাতেই সংক্রমণের হার বাড়ছে বলে স্বাস্থ্য সেবীরা মনে করছেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!