Hasan Ali

আমেরিকার স্বাধীনতা দিবস ও মুসলিম আমেরিকানদের দায়িত্ব ও কর্তব্য

আগামী ৪ঠা জুলাই শনিবার আমেরিকার ২৪৪তম স্বাধীনতা দিবস উৎযাপন করা হবে। ১৭৭৬ সালে আমেরিকা স্বাধীনতা লাভ করে ৷ মুসলিম দেশ মরক্কো আমেরিকাকে প্রথম স্বীকৃতি দান করে ৷

আমেরিকার স্বাধীনতার মূল উদ্দেশ্য ছিল সব মানুষের সমান অধিকার প্রতিষ্ঠা করা ৷ ১৭৮৯ সালে বিল অব রাইটে সব মানুষের বাক স্বাধীনতা, ধর্মের স্বাধীনতা, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা ও কর্মের স্বাধীনতা স্বীকৃতি লাভ করে ৷ তবে আমেরিকার ইতিহাস পাঠ করলে দেখা যায়, ১৮৬৩ সালে প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকন দাস প্রথা বাতিল করেন । ১৮৭০ সালে কালোদের ভোটাধিকার এবং ১৯২০ সালে নারীদের ভোটাধিকার দেওয়া হয় ৷

১৯৫০ সালের দিকে কালো লোকদের ভাল স্কুলে যাওয়ার, ভাল রেষ্ট্রুরেন্টে খাওয়ার ও বাসে বসার অধিকার ছিল না ৷ মার্টিন লুথার কিংয়ের আন্দোলনের ফলে আফ্রিকান আমেরিকানরা সব অধিকার লাভ করে ৷ সাবেক প্রেসিডেন্ট কালো বাপের সন্তান বারাক ওবামা ৮ বছর আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হিসাবে বিশ্বকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ৷

আমরা যদি আমাদের সন্তানদের উপযুক্ত শিক্ষা ও আমেরিকার রাজনীতিতে যোগদানোর ব্যবস্হা করে দেই , তবে আমাদের ছেলে-মেয়েরাও এই দেশে কংগ্রেসম্যান, সিনেটর, মেয়র , গভর্নর, প্রেসিডেন্ট ও সরকারের উচ্চপদস্ত কর্মকর্তা হতে পারবে ইনশাল্লাহ ৷

আমেরিকার বর্তমান প্রধান সমস্যা গরীব ও ধনীর ব্যবধান ৷ গরীর লোকেরা কাজ করে ঘরভাড়া ও খাওয়ার খরচ চালাতে পারেনা ৷ এই ব্যবধান দূরীকরনে আমার মতামত প্রদান করলাম ৷ আমেরিকার জন সংখ্যা ৩৩ কোটি এর মধ্যে ৪৫ মিলিয়ন অর্থাৎ ৪ কোটি ৫০ লক্ষ গরীর ৷ আমেরিকায় সাদা ৬২% ১৭%স্পানিশ, ১৩% কালো, ৫% এশিয়ান ৩% মুসলমান ৷ আমেরিকার বাজেট ৪.৮ ট্রিলিয়ন অর্থাৎ ৪ হাজার ৮ শত বিলিয়ন ডলার ৷

আমেরিকার মুসলিম লিডাররা নিজ নিজ এলাকার কংগ্রেসম্যান ও সিনেটরের সহযোগিতায় ব্যবসায়ের কন্টাক্ট ও সরকারী জব পাওয়ার ব্যাপারে চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে ৷ অর্থাৎ মুসলিম কমিউনিটি সহ মাইনরিটিদের অধিকার আদায়ে তৎপরতা চালাতে হবে ৷ মাইনোরিটিদের অধিকার নিয়ে কাজ করলে নিজ নিজ এলাকার নেতা নির্বাচিত হতে সহজ হবে ৷

আমেরিকায় ১ কোটির মত মুসলমান বসবাস করেন। এর মধ্যে ৩৫ হাজার ডাক্তার, ৩০ হাজার ইজ্ঞানিয়ার, ৪০ হাজার শিক্ষক কয়েক লক্ষ ব্যবসায়ী ও ২৮০০ শত মসজিদ আছে ৷ আমরা সবাই যদি অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য নিজ নিজ এলাকার কংগ্রেসম্যানের সহায়তায় স্হানীয় ব্যাংক থেকে সুদমুক্ত ঋণ নিয়ে ছোট ব্যবসার মাধ্যমে আমাদের দারিদ্র দূর করতে পারি ৷ সাথে সাথে মাইনোরিটিদের দারিদ্র দূর করে ধনী- গরীবের ব্যবধান কমিয়ে সুন্দর সমাজ গঠনে অবদান রাখতে পারি ৷

মুসলমানদের দায়িত্ব ও কর্তব্যঃ দেশের আইন মান্য করা, টাক্স দেওয়া, ভোট দেওয়া , ইলেকশনের সময় ভলেনটিয়ার হয়ে পলিটিশিয়ানদের জন্য কাজ করা ৷ ফান্ডরাইজিং অনুষ্ঠানে সামর্থ অনুযায়ী ফান্ড দেওয়া , যোগ্যতা অনুযায়ী নির্বাচনে দাঁড়ানো , নিরাপত্তার জন্য নিজ নিজ এলাকার পুলিশ কাউন্সিলের মাসিক অনুষ্ঠানে যোগদান করা ৷

মুসলমানদের অধিকার যেমন ঈদের ছুটি, হাসপাতালে, স্কুলে ও জেলে হালাল খাদ্য সরবরাহ নিশ্চিত করা। রমজান মাসকে মুসলিম হেরিটেজ মাস ঘোষনা করা। কংগ্রেসে আমেরিকান মুসলিম ককাস গঠন সহ মুসলমানদের অধিকার আদায়ে আমেরিকান মুসলিম পলিটিকেল একশন কমিটি গঠন করে কাজ আরম্ভ করা৷

এখন থেকে নিজ নিজ এলাকার কংগ্রেসম্যানের সাথে কংগ্রেসে বিল উত্থাপনে কথা বলুন ৷ আল্লাহ আমাদের সহায় হউন ৷

হাসান আলী , কনভেনার গ্লোবাল ভিলেজ লিডারশীপ কমিটি যুক্তরাষ্ট্র।

কনভেনার আমেরিকান মুসলিম পলিটিকেল একশন কমিটি (AMPAC)৷

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!