আমি আশাবাদী, ছেলে হত্যার বিচার পাব: মেজর সিনহার মা

কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে নিহত মেজর অবসরপ্রাপ্ত সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানের মা নাসিমা আক্তার বলেছেন, আমি বরাবরই আশাবাদী মানুষ। আমার মন বলছে আমি ছেলে হত্যার বিচার পাব। সোমবার (৩১ আগস্ট) বিকেলে রাওয়া কনভেনশন সেন্টারে রাওয়া ক্লাবের উদ্যোগে সিনহার আত্মার মাগফেরাত কামনায় আয়োজন করা হয় দোয়া মাহফিলের। সেখানে তিনি এসব কথা বলেন।

কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভের নামকরণ সিনহার নামে করার দাবি জানান, দোয়া মাহফিলে অংশ গ্রহণকারীরা।সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানের মা বলেন, আমরা ছেলে হত্যার ন্যায় বিচার প্রত্যাশা করছি।

দোয়া মাহফিলের শুরুতেই প্রদর্শিত হয় সিনহাকে নিয়ে নির্মিত একটি শর্টফিল্ম। শর্টফিল্মে উঠে আসে সিনহার শৈশব, কৈশোর, শিক্ষা ও কর্মজীবন। যেখানে সিনহার জীবনের গল্প তুলে ধরেন স্বজন, সহকর্মী ও শিক্ষকরা। এরপর ক্লাবের চেয়ারম্যান খন্দকার নুরুল আফসার বলেন, সময় লাগলেও ন্যায় বিচার পাবেন তারা।

ওসি প্রদীপ ও তার সহযোগীদের হাতে আরো যেসব হত্যাকা- ঘটেছে তারও বিচারের দাবি করেন রাওয়া চেয়ারম্যান। কেউ মামলা চালাতে না পারলে তাদের সহযোগিতার আশ্বাসও দেন তিনি।

এদিকে,অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যাকা-ের ঘটনা নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি তাদের রিপোর্ট জমা দিতে আরও সাতদিন সময় পেয়েছে। গত ৩০ আগস্ট তদন্ত কমিটি সময় বাড়ানোর জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছিলেন। আজ ৩১ আগস্ট ছিল তদন্ত কমিটির রিপোর্ট জমা দেওয়ার শেষ দিন।

আগামী ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কমিটির মেয়াদ বাড়িয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এটি চতুর্থ দফা সময় বৃদ্ধি। গত ৪ আগস্ট তদন্ত কমিটির কার্যক্রম আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু করা হয়। পরবর্তীতে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত তিন দফা সময় বৃদ্ধি করা হয়।

তদন্ত কমিটির প্রধান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আজ (৩১ আগস্ট) সন্ধ্যায় জানিয়েছেন, আগামী ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তদন্ত কমিটির মেয়াদ বাড়িয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় চিঠি দিয়েছে। আশাকরি সাত তারিখের আগেই আমরা রিপোর্ট জমা দিতে পারবো।

তিনি জানান, মেজর সিনহা নিহত হওয়ার ঘটনার তদন্তে কমিটি এ পর্যন্ত বিভিন্ন ক্যাটাগরির ৬৭ জনের জবানবন্দি নিতে পেরেছে। টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া সাবেক ওসি প্রদীপ যেহেতু এই ঘটনায় সংশ্লিষ্ট, তার জবানবন্দির অপেক্ষায় ছিল কমিটি। প্রদীপ রিমান্ডে থাকায় তার জবানবন্দি নিতে পারেনি কমিটি। ঐ কারণেই তদন্ত কমিটির মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে। আশাকরি আগামী ২ সেপ্টেম্বর বা পরেরদিন ওসি প্রদীপের জবানবন্দি নিতে পারবো। যেহেতু আগামীকাল ১ সেপ্টেম্বর প্রদীপের রিমান্ড শেষ হচ্ছে। আমরা একটি স্বচ্ছ এবং নিরপেক্ষ রিপোর্ট দিতে পারবো। তদন্ত কমিটির অপরাপর সদস্যরাও তদন্ত কার্যক্রমে আন্তরিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা তদন্ত কার্যক্রম অনেকটা গুছিয়ে আনতে পেরেছি।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে আহ্বায়ক করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ এই তদন্ত কমিটি করেছিলেন। এই কমিটিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের একজন প্রতিনিধি সদস্য হিসেবে আছেন লে. কর্নেল সাজ্জাদ যাকে মনোনীত করেছেন রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও কক্সবাজারের এরিয়া কমান্ডার। পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে এই কমিটিতে সদস্য হিসেবে আছেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপ পুলিশ মহাপরিদর্শকের মনোনীত অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ জাকির হোসেন। এছাড়া কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহা. শাজাহান আলি এই তদন্ত কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছেন।

এ কমিটি সরেজমিনে তদন্ত করে ঘটনার কারণ ও উৎস অনুসন্ধান করবে এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে মতামত দেওয়ার কথা রয়েছে।
৩১ জুলাই রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছিলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।এ ঘটনায় আত্মসমর্পণের পর ৬ আগস্ট ওসি প্রদীপ, লিয়াকত ও নন্দ দুলালসহ সাত পুলিশের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। রিমান্ড শেষে দ্বিতীয় দফায় ২৪ আগস্ট আরও সাত দিনের রিমান্ড চেয়েছিল র‌্যাব। আদালত চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন। ওই চার দিন রিমান্ড শেষ হলে তদন্তের স্বার্থে তৃতীয় দফায় আরও চার দিনের আবেদন করা হলে শুক্রবার (২৮ আগস্ট) তাদের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!