‘আমার জীবনের কোন দাম নাই’

একটি চিরকুট লিখে যান পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে ইমন হাওলাদার (২০) নামের এক যুবক।মারা যাওয়ার আগে নিজ হাতে যাতে লেখা ছিল, ‘আমি মারা গেলে কেউ কোনো দায়ী না। আমি যাকে ভালোবাসি তাকে আমি পাই নাই। আমার জীবনের কোনো দাম নাই। সবার কাছে আমি ক্ষমা চাইলাম’।

শনিবার (২০ জুন) সন্ধ্যায় উপজেলার গাবছিয়ায় গ্রামে তিনি আত্মহত্যা করেন ।

সন্ধ্যায় ইউনুস আলী হাওলাদারের বাড়ির খাবার ঘর থেকে ইমনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি উপজেলার গাবগাছিয়া গ্রামের ইউনুছ ঘড়ামির নাতি এবং পিরোজপুর সদর উপজেলার নামাজপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইমন বেশ কিছুদিন ধরে নানা বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। এখানে থাকার সুবাদে পাশের বাড়ির এক মেয়ের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে বলে জানান তার নানি। কিন্তু নানা বাড়ির কেউ ওই প্রেমের সম্পর্কে রাজি ছিলেন না।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যার দিকে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন ইমন। দুই ভাই ও তিন বোনের মধ্যে ইমন মেঝ। ইমন খুলনার একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে কাজ করতেন।

এর আগে ২০১৮ সালের এপ্রিলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইমনের নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া বোন রিবি আক্তার ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন বলে জানা যায়।

ইন্দুরকানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান জানান, ইমন নামের এক যুবক আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!