‘আমরা ফান্ডরাইজ করি আর ফটো তুলি, এই শেষ’

হাসান আলী

কানেটিকেট স্টেটকে নেতৃত্ব দিতে হলে প্রথমে দরকার নির্বাচিত জন প্রতিনিধিদের জবাবদিহিতা ও ধনী গরীবের ব্যবধান হ্রাস করে ন্যায় ও সাম্যের নীতি প্রতিষ্ঠা করা৷ বাস্তবে দেখা যায় সিটি, স্টেট ও ফেডারেল (কংগ্রেস) গভর্নমেন্টের নির্বাচিত আইন প্রনেতাগণ বছরের পর পর ধারাবাহিকভাবে নির্বাচিত হয়ে বড় বড় কোম্পানীগুলির স্বার্থ রক্ষায় ব্যস্ত। সাধারণ নাগরিকদের সমস্যা সমাধানে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের তেমন ভুমিকা দেখা যায় না।

মাঝে মাঝে আমাদের কাছে আসে ফান্ড সংগ্রহের জন্য, আমরা ফান্ডরাইজ করি আর ফটো তুলি এই শেষ৷ আমাদের অধিকার আদায়ে তেমন ভুমিকা নেই। আমার ছোট ভাই মান্সেস্টার  সিটিতে থাকে। আমি মাঝে মাঝে ভ্রমণে গেলে কমিনিটি লিডারদের( জনাব মইনুল হক চৌধুরী হেলাল, জনাব জিলু ভাইসহ অনেক) সাথে ভাইয়ের বাসায় কথা হয় ৷ তখন আমি ঈদের ছুটি, স্কুলে ও হসপিটালে হালাল ফুডের অধিকার আদায়ের কথা বলি এবং একথাও জানিয়ে দেই নিউইয়র্কে আমরা এই অধিকার আদায় করেছি। 

এখন আমাদের ছেলে-মেয়েরা উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত, আমারাও ধনে সম্পদে কম নয়, তাই আমেরিকার মূলধারার রাজনীতিতে যোগদান করে সাধারন নাগরিকদের কল্যাণে ও কানেটিকেট স্টেটে অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রাখতে যুব সমাজকে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানাচ্ছি।

এখন কানেটিকেট স্টেটে কিছু তথ্য তুলে ধরব।কানেটিকেট স্টেটের সংখ্যা ৩৫ লাখ ৭ হাজার, সাদা ৬৬%, হিস্পনিক ১৭%, আফ্রিকান আমেরিকান ১০%, এশিয়ান ৫% ৷কানেটিকেট স্টেটে ৫ জন কংগ্রেসম্যান ও দুইজন ইউএস সিনেটর আছেন ৷ইউএস সিনেটরদের নাম (১)Chris Murphy (২) Richard Blumenthal.

কানেটিকেটে আইন প্রনেতা স্টেট সিনেটর(উচ্চ পরিষদ) ৫৬ জন, হাউসের (নিম্ন পরিষদ) সদস্য ১৫১ জন এবং স্বায়ত্ব শাসিত আরও ৮ টি কাউন্ট আছে।

কানেটিকেটের গভর্নর Ned Lamont(Dem) বেতন ১ লাখ ৫০ হাজার ডলার।স্টেট সিনেটর ও হাউস সদস্যদের বেতন ২৮ হাজার ডলার (বেসিক), কংগ্রেসম্যান ও দুইজন ইউএস সিনেটরের বেতন ১লাখ ৭৪ হাজার ডলার। বাংলাদেশি 
আমেরিকানদের দায়িত্ব নিজ নিজ এলাকার কাউন্সিলম্যান, হাউস সদস্য ও স্টেট সিনেটরদের সাথে লবিং করে আমাদের অধিকার আদায় করে নিতে হবে।

অধিকারগুলি ১) ঈদের ছুটি ২) স্কুলে ও হাসপিটালে হালাল খাদ্য সরবরাহ ৩) স্টেট সিনেট ও হাউসে আমেরিকান মুসলিম ককাস ও বাংলাদেশি  আমেরিকান ককাস গঠন ৪) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি ৫) বাংলাদেশি কালচাল উন্নয়নে ফেডারেল ফান্ড সংগ্রহ ৬)ব্যবসায়ীদের উন্নয়নে ফেডারেল ফান্ড ও ফেডারেল ব্যবসায়ের কন্ঠাক্ট পেতে সহায়তা করা ৭) যুব সেন্টার স্থাপন (কম্পিউটার সেন্টার), ৮) মসজিদে ফেডারেল ফান্ডে সিনিয়র সেন্টার স্হাপন ৯) যুবক গ্রাজুয়েটদের জন্য সিটি, স্টেট ও ফেডারেল জব পেতে সহায়তা করা৷ 

এই সব বিষয়ে বাংলাদেশি আমেরিকান লিডার সন্মানিত বন্ধু মইনুল হক চৌধুরী হেলালসহ অন্যান্য নেতাদের এগিয়ে আসার অনুরোধ জানাচ্ছি ৷অধিকার কেহ কাহাকে দেয় না আদায় করে নিতে হয়। কানেটিকেট স্টেটের বাংলাদেশি আমেরিকানদের সংখ্যা ও কোন নির্বাচিত প্রতিনিধি আছেন কিনা জানা নেই, ফেসবুকের কোন সন্মানিত বন্ধু জানতে দিলে আনন্দিত হব ৷আল্লাহ আমাদের সহায় হউন ৷

বিঃদ্রঃ-আমার দেয়া তথ্যে কোন ক্রটি থাকিলে ক্ষমা প্রার্থী, ফেসবুকের সন্মানিত বন্ধুগণ আপনারে সুচিন্তিত মতামত দিয়ে সমাজকে এগিয়ে নেয়ার বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি ৷

লেখক: হাসান আলী, প্রেসিডেন্ট অর্গানাইজেশন অব বাংলাদেশী আমেরিকান্স।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!