অভিবাসন স্থগিতের নির্বাহী আদেশে সই করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। বাদ যায়নি যুক্তরাষ্ট্রও। এখন পর্যন্ত করোনায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে এ দেশটিতে।আর করোনার কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বেকারত্বে সংখ্যা বেড়ে গেছে। এতে ৬০ দিনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ী অভিবাসন বন্ধ রাখা ঘোষণা দিয়েছিলোনে দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত বুধবার এ নির্বাহী আদেশে সই করেন ট্রাম্প।

তিনি জানান, করোনায় বিপর্যস্ত অর্থনীতিতে বিদেশি কর্মীদের তুলনায় মার্কিন নাগরিকদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এ আদেশ দুই মাসের জন্য কার্যকর হবে বলে জানা গেছে। তবে পরবর্তীকালে প্রয়োজনে এর মেয়াদ আরও বাড়ানো হতে পারে বলেও জানান ট্রাম্প।

হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের দেয়া এক বিবৃতিতে ট্রাম্প বলেন, দেশের অর্থনীতি ফের সচল হলে যাতে সব বেকার মার্কিন নাগরিকদের কর্মসংস্থানে অগ্রাধিকার দেয়া হয় সেটি নিশ্চিত করতেই এ আদেশে স্বাক্ষর করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ভাইরাসের কারণে অনেক মার্কিনি চাকরিচ্যুত কিংবা কর্মহীন হয়েছেন। তাই তাদের জায়গায় শ্রমিক হিসেবে বিদেশিদের নেয়া হলে সেটি দেশের নাগরিকদের প্রতি অন্যায় হবে। কারণ সবার আগে মার্কিন শ্রমিকদের প্রতি যত্নশীল হতে হবে।

ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে চাচ্ছেন এমন বৈধ অভিবাসীরা নিষেধাজ্ঞার আওতাধীন হবেন। তবে দেশটিতে প্রতি বছর অস্থায়ীভাবে কাজের জন্য অভিবাসীদের যে ভিসা দেয়া হয় তার ওপরে এ স্থগিতাদেশের কোনো প্রভাব পড়বে না।

জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রে থাকা মার্কিন নাগরিকদের স্ত্রী, স্বামী ও সন্তান এবং চিকিৎসক, নার্স বা অন্য স্বাস্থ্যকর্মী যারা দেশটিতে প্রবেশের চেষ্টা করছেন তাদের ক্ষেত্রেও এ আদেশ কার্যকর হবে না।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.